সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ১০:২৪ অপরাহ্ন

বাউফলে উপবৃত্তির ০১টি ফরম বিক্রি হচ্ছে ৭২০ টাকায়

আবু সায়েম
  • প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ৩০ মার্চ, ২০২১
  • ২৫২ জন নিউজটি পড়েছেন

মাননীয় সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কল্যান ট্রাস্ট থেকে স্কুল কলেজে পড়ুয়া অসহায়, দু:স্থ শিক্ষার্থীদের জন্য উপবৃত্তির আয়োজন করেছেন। যার মাধ্যমে কিছুটা হলেও আর্থিক ভাবে লাভবান হতে পারবে শিক্ষার্থীরা।

এই উপবৃত্তির আওতায় আসতে হলে শিক্ষার্থীদেরকে  স্ব স্ব কলেজ থেকে উপবৃত্তির ফরম সংগ্রহ করে যেসব তথ্য ফরমে প্রয়োজন তা পূরন করে আবার পূনরায় কলেজে জমা দিতে বলা হয়েছে।

তবে এই উপবৃত্তির ফরম কলেজ থেকে সংগ্রহ করতে গিয়ে বিপাকে পরছেন শিক্ষার্থীরা। অভিযোগ রয়েছে এই একটি ফটোকপি ফরম সংগ্রহ করার জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষকে দিতে হচ্ছে মোটা অংকের টাকা।

গতকাল ২৯-০৩-২০২১ তারিখে দুপুর ১২.৩০ ঘটিকার সময় সরজমিনে বাউফলের কাছিপাড়া ইউনিয়নের মোঃ আবদুর রশিদ মিয়া ডিগ্রি কলেজে গিয়ে দেখা যায় একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা উপবৃত্তির ফরম নেয়ার জন্য কলেজে উপচে পরেছে, শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির ফরম নেয়ার জন্য প্রথমেই কাটতে হচ্ছে টাকার রিসিট, রিসিট সংগ্রহ করে সেটি নিয়ে পাশের টেবিলে গেলে সেখান থেকে মিলবে উপবৃত্তির ফরম।

প্রতিজন শিক্ষার্থীর কাছ থেকে রাখা হচ্ছে প্রতি ফরম বাবদ ৭২০ টাকা, তবে শিক্ষার্থী পরিচিতো হলে টাকার হিসেবটা অনেক সময় কম/বেশি হয়।

শিক্ষার্থী পরিচয়ে আবদুর রশিদ মিয়া ডিগ্রি কলেজের অফিস সহকারি আঃ রশিদের কাছে জানতে চাওয়া হয় এই একটা ফটোকপি ফরম বাবদ এতটাকা কেনো? তিনি কথার উত্তর না দিয়ে সরাসরি প্রিন্সিপালের কাছে যেতে বলেন।

শিক্ষার্থী পরিচয়ে আবদুর রশিদ মিয়া ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ গোলাম সরোয়ারের কাছে জানতে চাওয়া হয় সরকার উপবৃত্তির ফরমতো বিনা মূল্যে দিচ্ছে তবে আপনারা এত টাকা কেনো রাখছেন? জবাবে তিনি বলেন কলেজের বেতন,সেশন চার্জ বাবদ আমরা এ টাকা নিচ্ছি। এরপরই সাংবাদিক পরিচয় দিলে কথার ধরন সর্ম্পূনটাই পাল্টে যায় পূনরায় আবার জানতে চাওয়া হয় শিক্ষার্থীদের সাথে কেনো এই অনিয়ম করা হচ্ছে? উপবৃত্তির ফরমের সাথে সেশন চার্জ,মাসিক বেতনের সর্ম্পকটা কি?

জবাবে গোলাম সরোয়ার বলেন আমরা কোনো অনিয়ম করছিনা আমরা উপবৃত্তির ফরম সর্ম্পূণই বিন্যমূল্যে দিচ্ছি,তবে সরকার বেতন,সেশন চার্জ নিতে বলেছে তাই আমরা বেতন হিসেবে ০৬ মাসের জন্য প্রতি মাসে ১২০ টাকা করে সর্বমোট ৭২০ টাকা নিচ্ছি । এর বাইরে কোনো টাকা নিচ্ছিনা।  অনেক শিক্ষার্থী অসচ্ছল হওয়ায় আমরা তাদের থেকে কমও নিচ্ছি। আর অফিস সহায়ককে ফরম এবং বেতন নেবার দুটো দায়িত্ব দেবার কারনে বাহিরে হয়তো গুজব ছরিয়েছে যে উপবৃত্তির ফরমের জন্য টাকা নিচ্ছি। তবে এই টাকা উপবৃত্তির ফরমের সাথে কোনোভাবেই সমপৃক্ত নয়।

উল্লেখ কলেজে একাদশ শ্রেনীতে প্রায় ২৮০ জন শিক্ষার্থী রয়েছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী বলেন ২০২০ সালে ভর্তি হবার পর আমরা করোনার জন্য একদিনও ক্লাস করতে পারিনি তাহলে বেতন,অনন্য চার্জ বাবদ এ টাকা কেনো নিবে? আর উপবৃত্তির ফরম নিতে এসেই বা কেনো এই টাকা দিতে হবে। আর বেতন না দিলে ফরম দিবেনা এটাতো কোনো সিস্টেম হতে পারেনা।

এই বিষয়ে বাউফল উপজেলা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক কর্মকর্তা নাজমুল হকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন সরকার উপবৃত্তির ফরম সম্পূর্ণ বিনামূল্যে দিচ্ছেন এই বিষয়ে কেও অনিয়ম করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। যেহেতু আপনাদের মাধ্যমে আমরা অভিযোগ পেয়েছি এখন ঘটনা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

আমাদের বাউফল ডট কম পরিবারের পক্ষ থেকে সবাইকে জানাচ্ছি পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আর নিউজ
© All rights reserved © 2019 amaderbauphal.com
themesba-lates1749691102